মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারি

সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে মুখোমুখি অবস্থানের জেরে চলমান উত্তেজনার মাঝে মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন। আগামী ১৫ দিনের জন্য এ জরুরি অবস্থা ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

সোমবার দেশটির জাতীয় দৈনিক সান এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

সোমবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে প্রেসিডেন্টের সহযোগী ও আইনবিষয়ক মন্ত্রী আজিমা সাকুর জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেন, সরকার বিশ্বাস করে না যে, রাজবন্দিদের মুক্তি দিতে সুপ্রিম কোর্টের আদেশ বাস্তবায়ন করতে হবে।

এর আগে আব্দুল্লা ইয়ামিন বলেন, মালদ্বীপের ইতিহাসে পাঁচ বছরের মেয়াদে কোনো প্রেসিডেন্ট এ ধরনের সঙ্কটের মধ্যে পড়েননি।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, জরুরি অবস্থা জারি করায় সন্দেহভাজন ও বিরোধীদের গ্রেফতারে নিরাপত্তা বাহিনী অতিরিক্ত ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবে।

ইতোমধ্যে পার্লামেন্টের অধিবেশন স্থগিত করেছেন প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন। একই সঙ্গে প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনে সুপ্রিম কোর্টের যেকোনো ধরনের পদক্ষেপ ঠেকানোতে সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছে দেশটির ক্ষমতাসীন সরকার।

সোমবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যার দিকে মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্টের সামনে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আব্দুল গাইয়ুমকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন সরকার দলীয় সমর্থকরা। ভারী বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিক্ষোভ করেন তারা। পরে ওই এলাকায় মালদ্বীপ পুলিশের স্পেশাল অপারেশন কর্মকর্তাদের মোতায়েন করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার মালদ্বীপের সর্বোচ্চ আদালত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদসহ বিরোধীদলীয় ৯ জন নেতাকে মুক্তির আদেশ দেন। এই সংসদ সদস্যরা মুক্তি পেলে সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠ হবে বিরোধী দল। আদেশ বাস্তবায়ন না করায় প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের মুখোমুখি সংঘাত দেখা দেয়।

মোহাম্মদ নাশিদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সন্ত্রাসবাদের মামলাকে ভিত্তিহীন বলে ঐতিহাসিক রায় দেন সুপ্রিম কোর্ট।  রোববার দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ অনিল প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করতে সুপ্রিম কোর্ট চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করার পর মালদ্বীপে সঙ্কট মারাত্মক আকার ধারণ করে।

তার ওই অভিযোগের পর ওইদিন সকালেসেনাবাহিনীর সদস্যরা রাজধানী মালেতে অবস্থিত পার্লামেন্ট ভবন সিলগালা করার পর দখলে নেয়। দেশের শীর্ষ আদালতের সঙ্গে প্রেসিডেন্টের চলমান উত্তেজনার অবসানের লক্ষ্যে সোমবার মালদ্বীপের বিরোধীদলীয় নেতারা এক চিঠিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে সহায়তা চেয়েছেন।

চিঠিতে তারা বলেছেন, মালদ্বীপে জনগণের শাসন ফিরিয়ে আনতে ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সম্ভব সবকিছু করতে ভারত, শ্রীলঙ্কা, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ আমরা অান্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে অনুরোধ করছি।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া এই সঙ্কটের জেরে ব্যাপক চাপের মুখে রয়েছেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন। উত্তেজনা না বাড়াতে ও সঙ্কট দ্রুত সমাধানে ব্যবস্থা নিতে ইয়ামিনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টনিও গুটেরাস।

গণতন্ত্র অব্যাহত রাখতে বিরোধীদলীয় নেতাদের মুক্তি দিতে সুপ্রিম কোর্টের দেয়া আদেশে স্বাগত জানিয়েছে জাতিসংঘ, অস্ট্রেলিয়া, ব্রিটেন, কানাডা, ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র। অতীতে দুর্নীতির অভিযোগে বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যরা ইয়ামিনের অভিশংসনের চেষ্টা করেছিল; তবে সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। সূত্র : মালদ্বীপ ইন্ডিপেনডেন্ট, সান, এএফপি।

আপনাদের মতামত প্রকাশ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *