রায় প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ: মির্জা ফখরুল

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেওয়া কারাদণ্ডের রায় জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রায়ের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ফখরুল।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, অবৈধ সরকার রাজনীতি ও আসন্ন নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য ভুয়া ও মিথ্যা মামলা তৈরি করে খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘ইতিমধ্যেই তা প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ।’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বাকি আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

দুপুর ২টার দিকে ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এ রায় দেন। রায় ঘোষণার পর পরই কড়া নিরাপত্তার মধ্যে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে পুরান ঢাকার কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘অবৈধ সরকার আদালতের ওপর ভর করে তাদের নিকৃষ্টতম হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করল।’

মির্জা ফখরুল আরো বলেন লাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা যিনি দীর্ঘ ৯ বছর গণতন্ত্রের পক্ষে, স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন এবং জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে তিনবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন, দুইবার বিরোধীদলের নেতা হয়েছেন এবং বহুদলীয় সংসদীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করেছেন এই জনপ্রিয় নেতাকে এই গণবিচ্ছিন্ন অবৈধ সরকার রাজনীতি ও আসন্ন নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য ভুয়া ও মিথ্যা মামলা তৈরি করে নথি তৈরি করে তাকে সাজা দিয়েছে। যা এদেশের জনগণ কোনোদিনই গ্রহণ করবে না। ইতিমধ্যেই তা প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ। আমরা অত্যন্ত ঘৃণার সঙ্গে একে প্রত্যাখ্যান করছি।

আপনাদের মতামত প্রকাশ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *