আজকের দিন তারিখ ২২ জুন, ২০১৮ ইং, শুক্রবার, ৮ আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৭ শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী, দুপুর ১:১৮
সর্বশেষ সংবাদ
আইন-আদালত, জাতীয়, প্রধান সংবাদ ফয়জুরের ভাইয়ের কাছ থেকে পাওয়া গেছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

ফয়জুরের ভাইয়ের কাছ থেকে পাওয়া গেছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য


পোস্ট করেছেন: ঢাকা টেলিগ্রাফ | প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ১০, ২০১৮ , ১১:২১ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: আইন-আদালত,জাতীয়,প্রধান সংবাদ


শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুল হাসান ওরফে শফিকুরকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে। গতকাল শুক্রবার তাকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। রিমান্ডে তার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) ও জালালাবাদ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম।

তিনি জানান, তার কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য এখনো মিডিয়ার কাছে বলার সময় হয়নি। গত বৃহস্পতিবার থেকে ফয়জুলকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। হামলার ঘটনার পর আটক ফয়জুলের মামা ফজলুর রহমান, বাবা হাফিজ আতিকুর রহমান এবং মা মিনারা বেগম এখনো পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন বলে জানান আইও।

এদিকে, ফয়জুরের ভাই এনামুল হাসানের কাছ থেকে ফয়জুরের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে । ফয়জুলের ব্যবহৃত মোবাইল ও ট্যাবসহ এনামুলকে গত বৃহস্পতিবার গাজীপুর থেকে আটক করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট।

সিলেট মহানগর পুলিশ (এসএমপি) কমিশনার গোলাম কিবরিয়া জানিয়েছেন, ফয়জুর রহমান ওরফে ফয়জুলকে রিমান্ডে নেওয়ার মূল উদ্দেশ্য তার কাছ থেকে জঙ্গি সংগঠন বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা। তার সঙ্গে আর কোনও জঙ্গির যোগাযোগ আছে কিনা সে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া। তিনি বলেন, ‘ফয়জুলের ভাই এনামুল হাসান তার সম্পর্কে অনেক তথ্য জানে। পুলিশ তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করবে।’

ভাইয়ের ধরা পড়ার খবরে বাড়ি ছেড়ে চলে যান এনামুল হাসান। কিন্তু সাথে করে নিয়ে যান ফয়জুরের ব্যবহার করা বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস। ফলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে এনামুল হাসান টার্গেটে পরিণত হন। তাকে আটক করে ফয়জুরের ডিভাইসগুলো উদ্ধার করা গেলে তদন্ত কাজে নতুন গতি আসার কথা বলেছিল আইন শৃংখলা বাহিনী।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছিলেন, ফয়জুর ওই ডিভাইসগুলো দিয়ে অনলাইনে জঙ্গি নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত ছিলেন। এনামুলকে আটক করে তার কাছে থাকা ফয়জুরের ডিভাইসগুলো উদ্ধার করা জরুরী। ডিভাইসগুলো উদ্ধার করা গেলে এর মধ্য থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বা সূত্র মিলতে পারে বলে তাদের ধারণা।

ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের উপ-কমিশনার মহিবুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ফয়জুর আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের বিভিন্ন অনলাইন ফোরামের সাথে যুক্ত ছিল। এসব ফোরামে জাফর ইকবালকে হত্যার উসকানি দেয়া হতো। এনামুলকে আটকের পর মহিবুল ইসলাম জানিয়েছেন, এনামুলের কাছ থেকে ফয়জুরের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরো তথ্য পাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

আপনাদের মতামত প্রকাশ করুন