আজকের দিন তারিখ ২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ইং, বৃহস্পতিবার, ১৩ বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৮ শাবান, ১৪৩৯ হিজরী, রাত ২:০৯
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয়, দেশজুড়ে, প্রধান সংবাদ গণপরিবহন সংকটের সুযোগে বেপরোয়া চালকরা

গণপরিবহন সংকটের সুযোগে বেপরোয়া চালকরা


পোস্ট করেছেন: ঢাকা টেলিগ্রাফ | প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১৫, ২০১৮ , ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ | বিভাগ: জাতীয়,দেশজুড়ে,প্রধান সংবাদ


রাজধানীতে গণপরিবহন সংকটের সুযোগে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে যানবাহন চালকরাএতে করে বাড়ছে দুর্ঘটনা। জীবনের ঝুঁকি। গণপরিবহন ব্যবহারে যার সবচেয়ে বেশি দেখা মেলে নগরজীবনে। দিনকে দিন যা কেবল বেড়েই চলছে। ঢাকার রাস্তায় চলা গাড়িগুলো অবিরাম ছুটছে এলোমেলো গতিতে। গন্তব্যে পৌঁছতে যানবাহনগুলোর এ যেন নিয়ম ভাঙ্গার প্রতিযোগিতা।

এই প্রতিযোগিতার সাথে যোগ হয়েছে যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের আইন না মানার প্রবণতা। ফলে প্রতিদিনই ঘটছে দুর্ঘটনা। ঝড়ছে প্রাণ। দুই বাস চালকের বেপরোয়া প্রতিযোগিতায় প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে দুর্ঘটনা। নিহত-আহতের তালিকা ক্রমশই বাড়ছে। এ অবস্থার মধ্যেই চলছে রাজধানীর পরিবহন ব্যবস্থা। বেপরোয়া যান নিয়ন্ত্রণে নানামুখী পদক্ষেপ নিলেও মিলছে না সুফল।

দুই বাস (স্বজন এবং বিআরটিসি) চালকের বেপরোয়া প্রতিযোগিতায় গত ৩রা এপ্রিল হাত হারান কলেজছাত্র রাজীব হোসেন। তার রেশ কাটতে না কাটতেই রাজধানীতে আবারো ৫ই এপ্রিল বাসের বেপরোয়া গতির শিকার হলেন আয়েশা বেগম নামের এক নারী। দুই বাসের (বিকাশ পরিবহন) মাঝে পড়ে সন্তানকে রক্ষা করতে পারলেও, ভেঙেছে নিজের কোমর। ছোট্ট দুই সন্তানকে নিয়ে এখন অনিশ্চয়তায় আয়েশার পরিবার। যানবাহনের বেপরোয়া গতি ঠেকাতে আছে আইন। তবে রাস্তায় অবাধ্য হয়ে ছুটে চলা যানবাহন আটকাতে কতটা কাজে লাগানো যায় তা?

ট্রাফিক বিভাগ বলছে, সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে উত্তর সিটি কর্পোরেশনকে ৫১টি আর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে ৭০টি জায়গায় বাস স্টপেজ গড়ে তুলতে চিঠি দিয়েছে তারা। তবে জনবল সংকট আর অটো সিগন্যাল সিস্টেম না থাকায় সুফল মিলছে না। তবে রাজধানীতে গণপরিবহন চলাচলে শৃঙ্খলা আনতে দীর্ঘমেয়াদী বিভিন্ন পরিকল্পনা নেয়া হলেও তার বাস্তবায়ন কবে নাগাদ সম্ভব তার আশ্বাসও দিতে পারেনি ট্রাফিক বিভাগ।

বিআরটিএ এবং বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের তথ্য বলছে, দেশে মোট দুর্ঘটনার ৮৫ ভাগই ঘটে বেপরোয়া ও মাত্রাতিরিক্ত গতির কারনে। তারপরও জীবিকার তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত এসব যানবাহনে চড়ছে অসহায় নগরবাসী। রাস্তায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলা নগরবাসীকে দুর্ঘটনা থেকে বাঁচাতে এখনই যানবাহনের গতির লাগাম টেনে ধরার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

২০০৯ সালে এআরআই রাজধানীর দুর্ঘটনারোধে ঝুঁকিপূর্ণ অর্ধশতাধিক স্পট চিহ্নিত করে সেগুলোকে মেরামতের সুপারিশসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ পাঠায়। এসব ঝুঁকিপূর্ণ পয়েন্টের মধ্যে ছিল ফার্মগেট, সোনারগাঁও, বিজয় সরণি, শাহবাগ, মৎস্যভবন, জিপিও মোড়, মতিঝিল, যাত্রাবাড়ী, শনির আখড়া, সায়েদাবাদ ইত্যাদি। কিন্তু একাধিক নগর কর্তৃপক্ষ থাকা সত্ত্বেও এতদিন পরেও এ পর্যন্ত সেই সুপারিশ বাস্তবায়ন হয়নি।

আপনাদের মতামত প্রকাশ করুন